The landlord removed the woman doctor from home

The landlord removed the woman doctor from home. Homeowner kicks out a woman doctor for fear of getting infected with corona virus Such an inhuman incident took place in Shimulia village of Sonimuri upazila of Noakhali. The victim’s female doctor is working in the Guinea section of the Sonamuri Upazila Health Complex.

The landlord removed the woman doctor from home pic

The victim, Dr Asma Akhter, said that he was a doctor in the Guinea Department of the Sonamuri Upazila Health Complex. At present, Corona is serving his people by fighting the virus.

He has been serving patients continuously as per the government’s directive. The woman physician who has devoted herself to the service of the people, leaving her family, relatives and life at risk. But today, people do not want to pay as long as he can stay.

He also said that for a long time he was renting in Mohammad Ali Building in Rafiq Master area in Shimulia village of Sonimurri upazila. But suddenly two days ago the homeowner (Mohammad Ali) called her and gave her notice to leave.

See details below …..

The landlord removed the woman doctor from home

নারী চিকিৎসককে বাসা থেকে বের করে দিলেন বাড়িওয়ালা

করোনা ভাইরাস সংক্রমিত হওয়ার আশঙ্কায়  এক নারী চিকিৎসককে  বাসা থেকে বের করে দিলেন বাড়ির মালিক। এমন অমানবিক ঘটনাটি ঘটেছে নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী উপজেলার শিমুলিয়া গ্রামে। ভুক্তোভোগী  নারী চিকিৎসক সোনাইমুড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের গাইনী বিভাগের কর্মরত।

ভুক্তোভোগী ডাঃ আসমা আক্তার জানান, তিনি সোনাইমুড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের গাইনি বিভাগের চিকিৎসক । বর্তমানে নিজের জীবন বাজি রেখে  করোনা ভাইরাসের সাথে যোদ্ধ করে মানুষের সেবা দিয়ে যাচ্ছেন ।

তিনি সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী সকল নিয়মকানুন মেনে সার্বক্ষণিক রোগীদের সেবা দিয়ে আসছেন । নিজের পরিবার , আত্নীয়-স্বজন ছেড়ে জীবনের ঝুকি নিয়ে মানুষের সেবায় নিজেকে নিয়োজিত করেছেন ওই নারী চিকিৎসক । অথচ আজ তার থাকার যাইগা পর্যন্ত মানুষ দিতে চাইছে না ।

তিনি আরও জানান, দীর্ঘ দিন ধরে তিনি সোনাইমুড়ী উপজেলার শিমুলিয়া গ্রামে রফিক মাস্টারের এলাকার  মোহাম্মদ আলী বিল্ডিংয়ে ভাড়া থাকতেন । কিন্তু হঠাতি দুদিন আগে বাড়ির মালিক (মোহাম্মদ আলী) তাকে ডেকে নিয়ে বাড়ি ছাড়ার নোটিশ দেয় ।

বাড়ির মালিকের ধারনা, তিনি করোনা ভাইরাসে সংক্রমিত রোগীর চিকিৎসা করা এবং বাইরে যাওয়া আসার কারনে তার বাড়িতে করোনা ভাইরাস ছাড়াবে ।

তিনি আরও জানান, তার স্বামীর বাড়ি কুমিল্লাতে থাকায় ও যানবাহন বন্ধ থাকাতে তিনি সেখানে গিয়ে স্বামীর সাথেও থাকতে পারছেন না । তিনি এখন সোনাইমুড়ীতে একটি বেসরকারি হাসাপাতালে কোনভাবে দিন পার করছেন।

ওই নারী ডাঃ আসমা আক্তারের স্বামী জানায়, তারা এই বাড়ি ছাড়ার বিষয়টি জেলা প্রশাসক, উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সোনাইমুড়ী থানার ওসিকে জানিয়েছেন । কিন্তু গত দুদিনেও তারা কোনো কার্যকরী  প্রদক্ষেপ নেয়নি ।

এদিকে বাড়ির মালিক মোহাম্মদ আলীর সাথে কথা বললে তিনি সাংবাদিকদের কাছে নিজেকে নির্দোশ বলে দাবী করেছেন । মোহাম্মদ আলী জানান , বাড়ি ছাড়তে বলা মহিলা যে একজন চিকিৎসক সেটা তিনি জানতেন না । তাই বাড়ি ছাড়ার নোটিশ দিয়েছিলেন । কেননা, একজন মানুষ বাইরে যাওয়া আসা করা সকলের জন্য ঝুকিপূর্ণ ।

এই বিষয়টি জানাজানি হলে, স্থানীয় এলাকাবাসীরাও দুঃখ প্রকাশ করেন । তারা বলেন,  বিষয়টি অত্যাধিক অমানবিক । বর্তমানে এই সংকটময় মুহূর্তে চিকিৎসকরা নিজেদের জীবন বাজী রেখে করোনা ভাইরাসে সংক্রমিত মানুষকে সেবা দিয়ে যাচ্ছে । এসব মহৎ মানুষদের সাথে যেসব বাড়িওয়ালা অমানবিক আচরণ করবে তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার দাবী জানান তারা ।

The landlord removed the woman doctor from home

The homeowner thinks he will treat the coronary infected patient and leave the Corona virus in his home because of the outgoing.

She further said that her husband’s house was in Comilla and she could not stay with her husband when the vehicle was closed. He is now spending some day in a private hospital in Sonamuri.

The husband of the woman Dr Asma Akhter said they had informed the Deputy Commissioner, Upazila Executive Officer and Sonimuri police OC about the departure of the house. But in the last two days, they have not taken any effective action.

Meanwhile, when talking to homeowner Mohammed Ali, he claimed to be innocent of journalists. Mohammad Ali said he did not know that a woman who was asked to leave the house was a doctor. So he gave notice of leaving home. Because it is risky for a person to come out.

When this was reported, the locals also expressed regret. They said the matter was too inhumane. Presently, at this critical moment, doctors are serving the infected people with the Corona virus, putting their lives at risk. They demanded proper legal action against the landlords who treated these noble people inhumane.

 Source:  Somoy TV News

Corona VirusLive UpdateBD

 World update of the Corona virus

More News:

He will have to do corona virus duty when he goes out without any reason

Saptahik Chakrir Khobor

Leave a Comment