The landlord drove the tenant out of the house in the Corona crisis

The landlord drove the tenant out of the house in the Corona crisis. Unable to rent a home in time, the landlord moved a family with 3 children. The landlord drove the family away with three children, including a two-month-old child, at the Kalabagan in Dhaka for only one month.

Yesterday at midnight the lightning flashed in the sky and two showers of rain fell. At that time, the family’s helplessness in front of the house.

The landlord drove the tenant out of the house in the Corona crisis pic

Even after an overnight effort by police and the media, the helpless family was not allowed to enter the house. Speaking to the landlord Sampa Akhter over the phone, he informed from the phone that his father was working as a secretarial officer and brother RAB. In this case, they should be asked why the family has been evacuated.

At this time, the landlord accused Sampa Akhtar of the family. But police said everything was a lie. In fact, they do not want to let the family stay with the uncertainty of rent.

See details below …

The landlord drove the tenant out of the house in the Corona crisis

করোনা সঙ্কটে ভাড়া দিতে না পারায় বের করে দিলেন বাড়িওয়ালা

সময় মত বাসা ভাড়া দিতে না পারায়, ৩ সন্তানসহ একটি পরিবারকে বাসা থেকে বের করে দিলেন বাড়িওয়ালা । রাজধানী ঢাকার কলাবাগানে মাত্র এক মাসের বকেয়া বাসা ভাড়া দিতে না পারায় মধ্য রাতে দুই মাসের শিশুসহ ৩ সন্তান নিয়ে পরিবারটিকে তাড়িয়ে দেয় বাড়িওয়ালা ।

গতকাল মধ্যরাতে তখন আকাশে বিদ্যুৎ চমকাচ্ছে ও দুই এক ফোটা বৃষ্টিও পরছিল । এমন সময় বাসার সামনে অসহায় পরিবারটির আহাজারি ।

পুলিশ ও গণমাধ্যমের হস্তক্ষেপে রাতভর চেষ্টার পরেও অসহায় পরিবারটিকে বাড়িতে ঢুকতে দেওয়া হয়নি । ফোনে বাড়িওয়ালা সম্পা আক্তারের সাথে কথা বললে তিনি ফোনের উপার থেকে জানায়, তার বাবা সচিবালয়ের কর্মকর্তা ও ভাই র‍্যাবে চাকরি করে । এই বেপারে তাদেরকেই যেন জিজ্ঞেস করা হয় কেন পরিবারটিকে বাড়ি থেকে বের করে দেওয়া হয়েছে ?

এ সময় বাড়িওয়ালা সম্পা আক্তার নানা অভিযোগ আনে পরিবারটির উপর । কিন্তু পুলিশ জানায় , সবই মিথ্যে কথা । আসলে পরিবারটিকে তারা ভাড়ার অনিশ্চয়তা নিয়ে থাকতে দিতে চাইছেনা ।

পুলিশ জানায়, পুলিশ ও গণমাধ্যমের বহু চেষ্টার পরেও অসহায় পরিবারটির  ওই বাসাই স্থান হয়নি । এমনকি পুলিশ কর্মকর্তারা বাড়িওয়ালাকে অনুরুধ করে অন্তত একটি রাতের জন্য হলেও যেন তারা পরিবারটিকে থাকতে দেয় । কিন্তু তারা শোনেনি।

অসহায় পরিবারটি জানায়, বাড়িওয়ালা বলেছেন,  টাকা দাও নয়তো বাসা খালি করে দাও । আমরা এই অবস্থায় উনাদের টাকা দিবো কিভাবে বলেন ? মাত্র এক মাসের বকেয়া ভাড়ার জন্য মধ্য রাতে অসহায় পরিবারকে ২ মাসের শিশু সন্তানসহ বের করে দিয়েছে বাড়িওয়ালা ।

পরে পুলিশ কোনও উপাই না পেয়ে পরিবারটিকে বাড্ডায় তাদের এক আত্নীয়ের বাসায় ছেড়ে আসে ।

এদিকে, করোনা রোগী সন্দেহে মিরপুরে একটি পরিবারকে বাসায় প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছেনা এমন অভিযোগ উঠেছে বাড়িওয়ালার বিরুদ্ধে।

মিরপুরে  করোনা রোগী সন্দেহে তাদেরও বাসায় প্রবেশ করতে দিচ্ছে না বাড়িওয়ালা। সেই পরিবারের সদস্যরা বলেন, হার্টের সমস্যা এবং কিডনির সমস্যা জনিত কারনে পরিবারের একজন হাসপাতালে ভর্তি ছিল। হাসপাতাল থেকে ফিরলে বাড়িওয়ালা তাদের করোনা রোগী সন্দেহে বাসাই ঢুকতে দিচ্ছে না ।

যখন বিশ্বজুড়ে চলছে মৃত্যুর মিছিল ঠিক তখন মানুষের এমন ব্যবহারে প্রশ্ন উঠে মানবিকতা নিয়ে ।

যেখানে পৃথিবী ধ্বংসের মুখে রয়েছে সেখানে মানুষ কি করে এমন অমানবিকতার পরিচয় দিতে পারে ? যে সময় একজন মানুষ আরেকজনের পাশে থেকে একে অপকে সাহস যোগাবে।  সেখানে কি করে একটি পরিবার আরেকটি পরিবারকে বেঁচে থাকার অনিশ্চয়তার মধ্যে ঠেলে দিয়ে নিজেদের স্বাচ্ছন্দ নিয়ে ভাবছে ?

এসব অমানবিক মানুষেরা এখনো বুঝতে চাইছে না  যে, যেকোন মুহূর্তে মৃত্যু তাদের কাছেও হাতছানি দিয়ে আসতে পারে  ।

The landlord drove the tenant out of the house in the Corona crisis

Police said that despite the efforts of the police and the media, the helpless family did not find the place. Even the police officers beg the landlord for at least one night to let the family stay. But they did not listen.

The helpless family said the landlord said, either pay the money or evacuate the house. How do we say we will give them money in this situation? The landlord has thrown out a helpless family with a 2-month-old baby in the middle of the night for a month’s rent.

Later, the police left the family at their relative’s house in Badda without any cure.

Meanwhile, a homeowner has been accused of not allowing a family to enter the house in Mirpur on suspicion of a coronary patient.

The coroner in Mirpur suspected that the landlord would not allow them to enter the house. Family members said one of the family was hospitalized because of heart problems and kidney problems. After returning from the hospital, the landlord does not allow their coronary patient to enter the house without a doubt.

When the procession of death is going on all over the world, the question of such use of humanity raises the question of humanity.

Where in the world is the world in ruins? The time when one person will be able to brave one another from the other. How can a family there think of themselves as comfortable, pushing another family into the uncertainty of survival?

These inhuman beings still do not want to understand that death can come to them at any moment.

 Source:  Somoy TV News

Corona VirusLive UpdateBD

 World update of the Corona virus

More News:

The landlord removed the woman doctor from home

He will have to do corona virus duty when he goes out without any reason

Saptahik Chakrir Khobor

Leave a Comment